Home / খেলাধুলা / কেমন হচ্ছে চট্টগ্রাম টেস্টে বাংলাদেশের একাদশ?

কেমন হচ্ছে চট্টগ্রাম টেস্টে বাংলাদেশের একাদশ?

দোলাচলে থাকা সাকিব আল হাসান শতভাগ ফিট। চট্টগ্রামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টেস্টেই তাকে পাওয়া যাচ্ছে। কোভিড থেকে সেরে ওঠার পর শনিবার এক সেশনের প্রস্তুতি নিয়েই সাকিব পাঁচদিনের টেস্ট খেলতে মাঠে নামছেন।

তার ম্যাচ খেলার ফিটনেস আছে দাবি করে মুমিনুল বলেছেন, ‘সাইকোলজিকাল দিক থেকে এগিয়ে থাকায় সাকিব ভাই খেলতে পারবেন। যদি খেলতে চান তাহলে খেলতে পারবেন।’ অলরাউন্ডার সাকিব থাকলে দল একভাবে পরিকল্পনা সাজায়। না থাকলে আরেকভাবে।

সাকিবের উপস্থিতিতে বাড়তি একজন বোলার নিয়ে খেলার পথ তৈরি হয়। সাকিবের অনুপস্থিতিতে নিতে হয় বাড়তি ব্যাটসম্যান। সেক্ষেতে কেমন হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের চট্টগ্রাম টেস্ট একাদশ? অধিনায়ক মুমিনুল হক ম্যাচের আগের দিনও নিশ্চিত করতে পারেননি ছয় ব্যাটসম্যান, পাঁচ বোলার নিয়ে খেলবেন নাকি সাত ব্যাটসম্যান চার বোলার নিয়ে খেলবেন।

দলের কম্বিনেশন নিয়ে জানতে চাইলে মুমিনুল বলেছেন, ‘কাল (রোববার) সকালে আমরা উইকেট দেখব। এরপর সিদ্ধান্ত নেব চারটা বোলার নাকি পাঁচটা বোলার নিয়ে খেলবো। কম্বিনেশন এখনও ঠিক হয়নি।’

সাকিবের উপস্থিতিতে দল নির্বাচনের কাজ সহজ হয়ে গেছে তা বলেতে দ্বিধা করেননি মুমিনুল, ‘সাকিব ভাই আসাতে কম্বিনেশনটা একটু ভালো হয়। পেস বোলার নিয়ে রোববার সিদ্ধান্ত নেবো, দুইটা খেলবে নাকি তিনটা খেলবে।’

দক্ষিণ আফ্রিকায় সাকিবের অনুপস্থিতিতে বাংলাদেশ সবশেষ টেস্ট খেলেছিল তিন বোলার নিয়ে। অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজের সঙ্গে স্পিনার তাইজুল ইসলাম খেলেছিলেন। দুই পেসার ছিলেন খালেদ হোসেন ও ইবাদত হোসেন।

দেশের মাটিতে সবশেষ টেস্টে সাকিব খেলেছিলেন পাকিস্তানের বিপক্ষে। যেখানে দুই পেসারের সঙ্গে ছিলেন মিরাজ ও তাইজুল। এর আগে সাকিবের অনুপস্থিতিতে বাংলাদেশ পাকিস্তানের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টে সাত ব্যাটসম্যান, এক অলরাউন্ডার ও তিন বোলার নিয়ে খেলেছিল।

সাকিবের অনুপস্থিতিতে শেষ ৫ ম্যাচের ৫টিতেই খেলেছিলেন ইয়াসির আলী রাব্বী। বাঁহাতি স্পিন অলরাউন্ডারের উপস্থিতিতে ইয়াসিরকে জায়গা হারাতে হচ্ছে। চট্টগ্রামের উইকেট ব্যাটিং ফ্রেন্ডলি। রানপ্রসবা উইকেটে দুই-তিনজন ব্যাটসম্যান সেট হলেই বড় রান পাওয়া যায়। সেক্ষেত্রে বোলিং অপশন বেশি থাকলে পরীক্ষা-নিরীক্ষার সুযোগ থাকে। সঙ্গে তীব্র গরমও বিবেচনায় আসছে।

মুমিনুলের এই কথায় মনে হলো বাড়তি একজন বোলার নিয়েই একাদশ সাজাতে যাচ্ছে টিম ম্যানেজমেন্ট, ‘চট্টগ্রামে যেহেতু রান বেশি হয়, বোলারের চাহিদা বেশি থাকবে।’ সেক্ষেত্রে সাকিবের সঙ্গে স্পিনে হাত ঘুরাবেন নাঈম হাসান ও তাইজুল ইসলাম। সঙ্গে থাকবেন দুই পেসার। শরিফুল ইসলাম, খালেদ হোসেন ও ইবাদত হোসেনের মধ্যে যেকোনো দুইজন চট্টগ্রামে আগুণ ঝরাবেন।

সেক্ষেত্রে একাদশটা হচ্ছে অনেকটাই এরকম— তামিম ইকবাল, মাহমুদুল হাসান জয়, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, লিটন দাস, নাঈম হাসান, তাইজুল ইসলাম, ইবাদত হোসেন/শরিফুল ইসলাম/খালেদ হোসেন (যেকোনো দুজন)।

Check Also

ছুটি নিয়ে আবারও শীর্ষ আলোচনায় সাকিব

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের আগে ছুটি নিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সঙ্গে কম নাটক হয়নি …

Leave a Reply

Your email address will not be published.