Home / খেলাধুলা / মঞ্চে রাজত্ব সালাউদ্দিনদের, জায়গা পাননি সাবিনা-ছোটনরা

মঞ্চে রাজত্ব সালাউদ্দিনদের, জায়গা পাননি সাবিনা-ছোটনরা

হঠাৎ করে সংবাদ সম্মেলন কক্ষে এলেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল, এমপি। চেয়ার ছেড়ে দিতে হয় নারী জাতীয় ফুটবল দলের কোচ গোলাম রাব্বানী ছোটনকে। এর আগে এই ছোটনকে চেয়ার ছেড়ে দেন অধিনায়ক সাবিনা খাতুন।

চলে আসতে চাইলে পাশ থেকে একজন বলে ওঠেন দুজনকে পেছনে দাঁড়াতে। শেষে দুজনের জায়গা হয় মঞ্চের পেছনে। তারা দাঁড়িয়ে থাকেন সংবাদ সম্মেলনের বাকি সময়। সাফ চ্যাম্পিয়নদের বরণের পর বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সংবাদ সম্মেলনের চিত্র এটি।

শুরুতেই ছিল হ-য-ব-র-ল অবস্থা। রেগে গিয়ে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন দুইবার সংবাদ সম্মেলনস্থল ছেড়ে যেতে চান। পরে পরিস্থিত শান্ত হলে তিনি অবস্থান করেন। মঞ্চ দখলে ছিল বাফুফের সভাপতি, সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সহ-সভাপতিদের দখলে।

পরে যোগ দেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ও এই মন্ত্রণালয়ের সচিব। তারা সবাই বসার আসন পেলেও নেপাল থেকে ঢাকা আসার পর প্রায় ৫ ঘণ্টা দাঁড়িয়ে ছাদখোলা বাসে বাফুফে ভবনে আসা সাবিনাদের কোনো আসন ছিল না।

এমন উৎসবের দিনেও বাফুফের আয়োজনে ছিল কমতি। নিজেদের আঙিনায় বাড়তি কোনো আলোর ব্যবস্থা পর্যন্ত করা হয়নি। গত দুই দিন দেশের গণমাধ্যমের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দু ছিল সাফ জয়ী নারী দল। তারা ঠিকই জানতেন আজ ভিড়ভাট্টা হবে। কিন্তু ছিল না কোনো ব্যবস্থা।

সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয় বাফুফের কনফারেন্স রুমে। সেটিও দেশের সব গণমাধ্যমের কর্মীদের জন্য ছিল অপ্রতুল। ছাদখোলা বাসের ব্যবস্থা করা হলেও অব্যবস্থাপনার চিত্র ফুটে উঠেছে নিদারুণভাবে।

তবে দায়সারা উত্তরই দিলেন বাফুফের সিনিয়র সহ-সভাপতি সালাম মুর্শেদী। ছোট জায়গায় সংবাদ সম্মেলন নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা আরও বড় জায়গায় সংবাদ সম্মেলন করব, সংবর্ধনা দেব। এখন তাদের বরণের সময়।’

অন্ধকরাচ্ছন্ন বাফুফে ভবন নিয়ে তার উত্তর, ‘আজকের দিনটি হলো আমাদের গর্বের দিন, আনন্দের দিন। এই আনন্দের মধ্যে আলো আছে। তারা যে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে এটাইতো আলো।’

সংবাদ সম্মেলনে সাবিনা বলেন, ‘অবশেষে আমরা স্বপ্নটা পূরণ করতে পেরেছি। আপনারা সব সময় পাশে ছিলেন, সমর্থন দিয়েছেন। সেজন্য আপনাদের ধন্যবাদ। আশা করি সামনেও সমর্থন দেবেন এবং আমরা দেশকে আরও ভালো ভালো শিরোপা উপহার দেবো।’

আজ দুপুর ১টা ৪৫ মিনিটে ঢাকা পৌঁছায় ফুটবল দল। সেখানে তাদের অভ্যার্থনা জানান যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী। এরপর ছাদ খোলা বাসে করে প্রায় ৫ ঘণ্টার যাত্রা শেষে আসেন বাফুফেতে। এখানে তাদের বরণ করে নেন সভাপতি সালাউদ্দিন। এরপর শুরু হয় সংবাদ সম্মেলন!

সংবাদ সম্মেলনে সালাউদ্দিন এই ফুটবল দলকে পরবর্তী পর্যায়ে নেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। দক্ষিণ এশিয়াতো জয় হলো, এবার তার আশা সাবিনারা লড়বে এশিয়ার বিপক্ষে। এশিয়া জয় করে এলে ফুটবলার-কোচদের মঞ্চে জায়গা হবেতো?

কারণ, যাদের কারণে এই সংবাদ সম্মেলন তারাই ছিলেন আড়ালে। সালাউদ্দিন নেপাল যাননি, যাননি বিমানবন্দর কারণ যাতে মেয়েরা ঠিক লাইম লাইট যেন পায়। কিন্তু নিজেদের ডেরায়-ইতো মেয়েরা ঠিক আলোটা পাননি।

Check Also

দেশে পা রেখেই গ্রেপ্তার লামিচানে

গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির প্রায় এক মাস পর আজ দেশে ফিরেছেন নেপালের ক্রিকেটার সন্দীপ লামিচানে। কাঠমান্ডুর …

Leave a Reply

Your email address will not be published.