Home / খেলাধুলা / মুর্শিদার পর জ্যোতির ঝড়ো হাফ সেঞ্চুরি

মুর্শিদার পর জ্যোতির ঝড়ো হাফ সেঞ্চুরি

মুর্শিদার হাফ সেঞ্চুরির পর ১৭তম ওভারে ঝড় তোলেন অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতি। নুর দানিয়াকে এক ছয় ও দুই চার মেরে ওই ওভারে ১৮ রান তোলেন তিনি। পরের ওভারে আরও একটি করে চার, তাতে ৩২ বলে হাফ সেঞ্চুরির দেখা পান তিনি।

অবশ্য ১৯তম ওভারের পঞ্চম বলে প্রতিপক্ষ অধিনায়ক উইনফ্রেড দুরাইসিংগামের শিকার হন তিনি। ৩৪ বলে ৬ চার ও ১ ছয়ে ৫৪ রান করেন জ্যোতি। মুর্শিদার সঙ্গে ৮৭ রানের জুটি গড়ে ফেরেন তিনি।

হাফ সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিচ্ছেন মুর্শিদা
চলতি নারী এশিয়া কাপে বাংলাদেশের প্রথম হাফ সেঞ্চুরি করলেন মুর্শিদা খাতুন। ৪৭ বলে ৬ চারে ফিফটি করেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। তার সঙ্গে অন্য প্রান্তে আছেন অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতি। ১৫.৩ ওভারে ২ উইকেটে মালয়েশিয়ার বিপক্ষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৮৪ রান।

প্রতিরোধ গড়ে ফারজানার বিদায়
কোনও রান না করেই এক উইকেট হারানোর পর মুর্শিদা খাতুনকে নিয়ে প্রতিরোধ গড়েন ফারজানা হক। ৩৪ রানে এই জুটি ভাঙে তার বিদায়ে। ২৪ বলে ১০ রান করেন তিনি। ১০ ওভারে ২ উইকেটে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪৫ রান।

প্রতিরোধ গড়েছে বাংলাদেশ
উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ ব্যাটিংয়ে শুরুটা করলেও প্রতিরোধ গড়েছেন মুর্শিদা খাতুন ও ফারজানা হক। পাওয়ার প্লের ছয় ওভারে ২০ রান তুলেছেন তারা দুজন। মালয়েশিয়ার বিপক্ষে টস জিতে ব্যাটিং করতে নেমে প্রথম বলেই শামীমা সুলতানা এলবিডব্লিউ হন।

প্রথম বলেই উইকেট হারালো বাংলাদেশ
প্রথম বলেই সাশা আজমির কাছে উইকেট হারালো বাংলাদেশ। ওপেনার শামীমা সুলতানা শূন্য রানে এলবিডব্লিউ হন।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ
সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে টস জিতে মালয়েশিয়ার বিপক্ষে ব্যাটিং নিয়েছে বাংলাদেশ। নারী এশিয়া কাপে তৃতীয় ম্যাচে দ্বিতীয় জয়ের খোঁজে নিগার সুলতানা জ্যোতির দল।

পাকিস্তানের বিপক্ষে ঘরের মাঠে হার এখনো দগদগে। ধাক্কা খেলেও দ্রুত মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছে বাংলাদেশের মেয়েরা। তাছাড়া যেকোনো উপায়ই নেই! এক হারের শোকে নিমজ্জিত থাকলেতো আখেরে হারাতে হবে টুর্নামেন্টটাই।

এবার বাংলাদেশের সামনে মালয়েশিয়া।বৃহস্পতিবার দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে খেলাটি শুরু হবে। এতদিন ধরে আউটারের গ্রাউন্ড টুতে খেলা হলেও আজ থেকে হচ্ছে মূল মাঠেই। নারী এশিয়া কাপে সবচেয়ে আলোচিত বিষয় উইকেট। সিলেটের মাঠে মেয়েদের ঘর বাড়ি হলেও হঠাৎ করে যেন দুর্বোধ্য হয়ে যায়। আপাতত স্বস্তির এই মাঠে আর খেলা হচ্ছে না।

স্পিনার সানজিদা আক্তার মেঘলাও তেমন আশা করছেন। ‘সকালে যখন খেলি, বৃষ্টি ও কুয়াশা থাকে, মাঠে ফিল্ড আরেকটু গ্রেসি থাকে। সেক্ষেত্রে লাঞ্চের পর যখন আমরা খেলবো, উইকেট আলাদা থাকবে, রোদ থাকবে। আশা করা যায় তখন উইকেট একটু ফ্ল্যাট হবে।’

শক্তি ও সামর্থ্যের বিচারে বাংলাদেশ মালয়েশিয়া থেকে অনেক এগিয়ে। ঘরের মাঠ বিচার করলে নিগার সুলতানা জ্যোতির দল আরও এগিয়ে যাবে। তবে খেলতে হবে সেরাটা। না হয় ঘটতে পারে অঘটনও।

সানজিদাও বলছেন তেমনই। ‘আসলে প্রতিপক্ষ ছোট বা বড় করে দেখার উপায় নেই। কারণ এটা গুরুত্বপূর্ণ। সবাই জেতার জন্য এসেছে। আমাদের লক্ষ্য থাকবে প্রতিপক্ষ যেই হোক ভালোটা দিয়ে শুরু ও শেষ করতে চাই।’

এর আগে মালয়েশিয়ার বিপক্ষে দুবার মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ। শেষবার কমনওয়েলথ গেমসে। দুবারই জয় পেয়েছে লাল সবুজের মেয়েরা। পাকিস্তানের বিপক্ষে হারের ধাক্কা ভুলে জয়ের ধারায় ফিরতে ইতিবাচক স্বাগতিক দল।

Check Also

চোখের জলে সুয়ারেজ-কাভানিদের বিদায়

ক্যারিয়ারের একেবারে পড়ন্ত বেলায় চলে এসেছেন লুইস সুয়ারেজ ও এডিনসন কাভানি। ক্লাব ফুটবলে নিজেদের সোনালি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *